Background Image

আমাদের সংবাদ

মানাসিক একাডেমি ও সাফল্যের অংশীদারগণ

মানাসিক একাডেমি ও সাফল্যের অংশীদারগণ

3:25 am Friday 5th Dhu al-Qi'dah 1438 H

মাননীয় ধর্মমন্ত্রী শাইখ সালেহ বিন আব্দুল আযীয বিন মুহাম্মদ আল্ আশ্-শাইখ ও মাননীয় ধর্মমন্ত্রীর মসজিদবিষয়ক উপমন্ত্রী ড. তাওফীক্ব বিন আব্দুল আযীয আস্-সুদাইরীর পূর্ণ সমর্থন ও সহযোগিতাতেই “মানাসিক একাডেমি”র যাত্রা শুরু হয়েছে উল্লেখ করে একাডেমির নির্বাহী পরিচালক শাইখ ত্বলাল বিন আহমাদ আল্-আক্বীল বলেন: মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় একাডেমির সেবা কার্যক্রম দ্রুত চালু করতে করনীয় সবকিছু যথাসম্ভব দ্রুত সময়ে শেষ করতে তাগাদা দিয়েছেন, যেন আধুনিক প্রযুক্তির কার্যকর ব্যবহারের মাধ্যমে সম্পূর্ণ নতুন পদ্ধতিতে বাস্তবায়িত হজ্বসেবামূলক এ ই-একাডেমি থেকে বিশ্বের নানা প্রান্তের বিভিন্ন ভাষার মুসলিমগণ উপকৃত হতে পারেন এবং অত্যন্ত সুবিন্যস্তভাবে, প্রাঞ্জল ভাষায় উপস্থাপিত হজ্ব ও ওমরাহ্’র বিধি-বিধানসমূহ জানতে পারেন।

এ একাডেমিতে প্রদত্ত কোর্স ও পাঠসমূহ উপস্থাপনে অংশগ্রহণ করেছেন শিক্ষা, প্রশিক্ষণ, দাওয়াতের ময়দান ও হজ্বসেবা কর্মসূচিতে দীর্ঘ দিনের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন এ দেশের শীর্ষস্থানীয় অনেক নির্ভরযোগ্য আলেম-ওলামা ও দা‘ঈ। আরবী ছাড়া অন্যান্য ভাষায় অংশগ্রহণ করে এ একাডেমিকে সমৃদ্ধ করেছেন বিভিন্ন দেশের অনেক অভিজ্ঞ আলেম-ওলামা ও সৌদি ধর্মমন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে নিয়োগপ্রাপ্ত দা‘ঈ, যারা এদেশের বিভিন্ন ইউনিভার্সিটি থেকে শর‘য়ী বিভিন্ন বিষয়ে গ্র্যাজুয়েশনপ্রাপ্ত। সর্বমোট চল্লিশ জনের বেশী আলেম ও দা‘ঈর অংশগ্রহণে বিশ্বের আটটি সমৃদ্ধ ভাষায় হ্জ্ব-ওমরা্হবিষয়ক কোর্স/পাঠ, বিষয়ভিত্তিক ও নির্দেশনামূলক আলোচনাসহ এক হাজারের বেশী টিভি প্রোগ্রাম এ একাডেমিতে স্থান পেয়েছে। “দলীলুল হাজ্বি ওয়াল মু‘তামির” (হজ্ব ও ওমরাহ্ পালনকারীদের নির্দেশিকা) বইটিও আট ভাষায় এখানে বিদ্যমান।

মাননীয় ধর্মমন্ত্রীর হজ্ব, ওমরাহ, ‍যিয়ারত ‍ও মিডিয়াবিষয়ক উপদেষ্টা শাইখ ত্বলাল বিন আহমাদ আল-আক্বীল বলেন: এই অসাধারণ প্রকল্পটির শুরু থেকেই প্রতিষ্ঠাতা অংশীদার হিসেবে সব ধরণের সাপোর্ট দিয়ে যাচ্ছে সমাজসেবামূলক সংস্থা সায়্যিদ হাসান আব্বাস শরবতলী দাতব্য সংস্থা। এ সংস্থাটি সবসময় দাওয়াতী সেক্টরে সর্বাত্মক সহযোগিতা ও উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখে যাওয়া জাতীয় দাতব্য সংস্থাসমূহের অন্যতম।

শাইখ আল-আক্বীল আন্তরিক সহযোতিা ও সর্বাত্মক সমর্থনের জন্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সংস্থার প্রধানসহ কার্যকরী কমিটির সকল সদস্যের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। যথাযথ সমন্বয়ের জন্য সংস্থার নির্বাহী পরিচালক আব্দুল লতীফ আন্-নক্বলীকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

পরিশেষে শাইখ আল-আক্বীল দলবদ্ধ হয়ে কাজ করার প্রতি গুরুত্বারোপ করে বলেন: দলবদ্ধ হয়ে কাজ করার ফলাফল অনেক সুমধুর, জীবনে এর প্রভাব অনেক সুদূরপ্রসারী। সৌদিআরবের ধর্ম ও দাওয়াত মন্ত্রণালয় দলবদ্ধ হয়ে কাজ করা ও প্রত্যেক সেক্টরের মধ্যে সম্পর্কের সেতুবন্ধনকে সুদৃঢ় করণের প্রতি বিশেষভাবে জোর দেয়। কারণ, এর মাধ্যমে সকলে মিলে বিশ্বের বিভিন্ন ভাষায় আধুনিক প্রযুক্তি ও যোগাযোগমাধ্যমের যথাযথ ব্যবহার করে দা‘ওয়াতি সেক্টরে উত্তরোত্তর উন্নতি ও অগ্রগতি সাধনে, সাধারণ মানুষের কাছে সহজে ক্বুরআন-সুন্নার বানী পৌঁছাতে ও তাদের মধ্যে শরিয়তের মৌলিক জ্ঞান ও সীরাতে রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্ললাম)’র ভিত্তি মজবুতকরণে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে।